আলিবাবার জ্যাক মা’কে দিল্লির আদালতে সমন করতে বলা হয়েছে

14
আলিবাবার জ্যাক মা’কে দিল্লির আদালতে সমন
বিখ্যাত চীনা প্রতিষ্ঠান আলিবাবা পরিচালিত ‘ইউসি নিউজ’-র অ্যাপে ভুয়া খবর প্রকাশ করা হচ্ছে, এমন বিষয় নিয়ে কথা বলার পর পুষ্পেন্দ্র সিংহ পারমার নামে এক ভারতীয় কর্মী চাকরি হারান। তবে হাল ছাড়েননি পুষ্পেন্দ্র। সংস্থাটির বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হন তিনি। সেই ঘটনায় এবার অভিযুক্ত সংস্থা আলিবাবাকে সমন পাঠিয়েছে ভারতের দিল্লির গুরুগ্রামের এক জেলা আদালত। তলব করা হয়েছে সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা-কেও।
২০ জুলাইয়ের আদালতের নথি অনুযায়ী, ইউসি ওয়েবের সাবেক কর্মী পুষ্পেন্দ্র অভিযোগ করেছেন- চীনের জন্য ‘অনুকূল নয়’ এমন সব তথ্য কখনই প্রকাশ করা হতো না ওই অ্যাপটিতে। এমনকি ইউসি ব্রাউজার এবং ইউসি নিউজের বিরুদ্ধে সরাসরি ‘সামাজিক এবং রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব’ উস্কে দিতে পারে এমন সব ভুয়া খবর প্রকাশের অভিযোগও এনেছেন তিনি।২০০ পাতার অভিযোগপত্রে ইউসি নিউজে প্রকাশিত বেশ কয়েকটি পোস্টের ভিডিও ক্লিপের কথাও বলেছেন পুষ্পেন্দ্র। যার মধ্যে রয়েছে ২০১৭ সালে প্রকাশিত একটি খবর। হিন্দিতে লেখা সেটির শীর্ষক, ‘২০০০ রুপির নোট নিষিদ্ধ হতে চলেছে আজ মধ্যরাত থেকে’।২০১৮ সালে প্রকাশিত একটি ক্লিপিংয়ে আবার দেখানো হয়েছে, ‘যুদ্ধ বেঁধে গেছে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে’! তার আরও অভিযোগ, একটি বিশেষ অডিট সিস্টেম ব্যবহার করতো সংস্থাটি। যেখানে হিন্দি বা ইংরেজিতে ‘ভারত-চীন সীমান্ত’সহ আরও বেশ কয়েকটি বিশেষ কি-ওয়ার্ডের ভিত্তিতে খবর বাছাই করা হতো। বাদ দেয়া হতো চীনের জন্য ‘প্রতিকূল’ এমন সব খবর।সমনের বয়ান অনুযায়ী, আগামী ২৯ জুলাইয়ের মধ্যে আলিবাবা, তার সহ-প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মা, সংস্থার বেশ কয়েকটি ইউনিট এবং তার সঙ্গে যুক্ত একাধিক ব্যক্তিকে সরাসরি হাজিরা দিতে বা আইনজীবীর মাধ্যমে যোগাযোগ করতে নির্দেশ দিয়েছেন গুরুগ্রামের ওই জেলা আদালতের বিচারক সোনিয়া শিয়োখণ্ড। আগামী ৩০ দিনের মধ্যে তাদের থেকে লিখিতভাবে অভিযোগের উত্তরও চেয়ে পাঠানো হয়েছে আদালতের পক্ষ থেকে।ভারতে অবস্থিত সংস্থার শাখা ‘ইউসি ইন্ডিয়া’ অবশ্য এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করতে চায়নি। এক বিবৃতিতে শুধু বলেছে, ভারতীয় বাজার এবং এখানকার কর্মীদের কল্যাণ সাধনে সংস্থার ভূমিকা অবিচল এবং তাদের সমস্ত নীতি এখানকার আইন মেনেই নির্ধারিত হয়েছে। আলিবাবা বা জ্যাক মা-এর মুখপাত্ররাও কেউ এই প্রসঙ্গে এখনও কোনও মন্তব্য করেননি।লাদাখে ভারত-চীন সংঘর্ষের আবহে কয়েক সপ্তাহ আগেই নিরাপত্তাজনিত কারণের উল্লেখ করে এ দেশে মোট ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে দেয়া হয়েছে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে। ‘ইউসি নিউজ’ এবং ‘ইউসি ব্রাউজার’ও রয়েছে সেই তালিকায়। সেই প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে পুষ্পেন্দ্রর তোলা এই অভিযোগের বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে বলেই মত কূটনীতিকদের|