চামড়া বিক্রি করতে না পেরে হতাশায় পড়েছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা

40

রয়েল নিউজ
বিক্রি করতে না পেরে চট্টগ্রামে আতুরার ডিপো এলাকায় রাস্তার পাশে চামড়া ফেলে গেছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। তারা বলছেন, আড়ৎদাররা তাদের কাছ থেকে চামড়া কিনছেন না। এদিকে ট্যানারি মালিকরা টাকা না দেয়ায় ভালো দাম দিতে পারছেন না বলছেন আড়ৎদাররা। অন্যদিকে চামড়ার ন্যায্যদাম পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করছেন দেশের বিভিন্ন জেলার ব্যবসায়ীরা।

শনিবার কোরবানির পর দুপুর থেকেই চট্টগ্রামে চামড়ার আড়ত আতুরার ডিপো এলাকায় কাঁচা চামড়া নিয়ে আসতে থাকেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা। কিন্তু বিক্রি করতে না পেরে রাস্তার পাশে চামড়া ফেলে যান তারা। দীর্ঘ সময় রাস্তায় চামড়া পড়ে থাকায় দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে ওই এলাকায়। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, আড়ৎদাররা তাদের কাছ থেকে চামড়া কিনছেন না।

আর ট্যানারি মালিকরা গত বছরের পাওনা টাকা পরিশোধ না করায় চামড়া কিনতে পারছেন বলছেন আড়তদাররা।

এদিকে সিলেটে প্রতি বছর ৭০-৮০ হাজার গরুর চামড়া সংগ্রহ হলেও, এবার হয়েছে মাত্র ২০ হাজার। চামড়ার দাম না পাওয়া এবং মাদ্রাসা বন্ধ থাকায় গ্রামাঞ্চলে অনেকেই চামড়া ফেলে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন চামড়া ব্যবসায়ীরা।

ঈদের আগে সরকার চামড়ার দাম নির্ধারণ করে দিলেও সে দামে বেচা-কেনা হচ্ছে না বলে অভিযোগ লক্ষ্মীপুরের মৌসুমী ব্যবসায়ীদের।

অন্যদিকে বেনাপোলে ছোট বড় গরুর চামড়া বিক্রি হচ্ছে ১শ থেকে ৩শ টাকা দরে। ছাগলের চামড়া ২০ টাকা। ব্যাবসায়ীরা বলছেন, আড়তদাররা কম দামে চামড়া কিনছেন।নাটোরে চকবৈদ্যনাথ আড়তে আশপাশের জেলা থেকে চামড়া আসতে শুরু করেছে। ৮/১০ দিন পর শুরু হবে পুরোদমে বেচাকেনা।: