ঝিনাইদহে নেই আইসিইউ ও হাই ফ্লো অক্সিজেন, হাহাকার মানুষের!

29

রয়েল নিউজ, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে হাই ফ্লো অক্সিজেনের অভাবে করোনা আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে হাহাকার চলছে। যখন তখন প্রয়োজন হচ্ছে হাই ফ্লো অক্সিজেন সেবা। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দিতে পারছে না। ফলে রোগীর জীবন বিপন্ন হচ্ছে।

মিল্টন নামে রোগীর এক স্বজন জানান, তার মায়ের হাই ফ্লো অক্সিজেন যখন প্রয়োজন ছিল তখন পাওয়া যায়নি। হাই ফ্লো অক্সিজেনের অভাবে মায়ের মৃত্যু ঘটে।

সোমবার বিকালে ঝিনাইদহ উপশহরপাড়া নিবাসী সাংবাদিক জাহিদুর রহমান তারিক নামে আরেক জন রোগীর স্বজন জানান, ঝিনাইদহ-চুয়াডাঙ্গা সিমান্তের চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার জীবনা গ্রামের আবুল হোসেনের স্ত্রী ও তার ছোট চাচি আনোয়ারা বেগম (৭০) হাই ফ্লো অক্সিজেনের অভাবে যখন ছটফট করছিল তখন হাসপাতাল থেকে বলা হয় হাই ফ্লো অক্সিজেন সব এক্টিভ।

তারপর সাংবাদিক জাহিদুর রহমান তারিক মুমুর্ষ অবস্থায় তার চাচিকে নিয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা আইসলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে। সেখানেও আইসিইউ এবং হাই ফ্লো অক্সিজেন পাওয়া যায়নি। ফলে সোমবার বিকাল ৪টার দিকে তার চাচির মৃত্যু ঘটে।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মিথিলা ইসলাম জানান, ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে হাই ফ্লো অক্সিজেন খুবই কম। ১২টির মধ্যে দুইটি নষ্ট। ১০টি সব সময় এক্টিভ থাকে। ফলে জরুরী মুহুর্তে রোগীদের হাই ফ্লো অক্সিজেন সেবা দিতে পারছি না।

এদিকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের করোনা রোগীদের জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান করেছে জাহেদী ফাউন্ডেশন। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে ৪০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া হয়।

এসময় ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ হারুন-অর-রশিদ ও জাহেদী ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সদস্য কাইয়ূম শাহারিয়ার জাহেদী হিজলসহ চিকিৎসকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য আরো ১৫ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া হয়। সোমবার সকালে জাহেদী ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রাশেদ আল মামুনের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তবে এই মুহুর্তে সবচে বেশি প্রয়োজন হাই ফ্লো অক্সিজেন।

রয়েল টিভি/ এস সি/ ১৩ জুলাই, ২০২১

Previous articleট্রাক থেকে পড়ে গরু ব্যবসায়ী নিহত
Next articleকরোনাভাইরাসে দেশে আরও ২০৩ জনের মৃত্যু